counter বাঘায় টাকা পরিশোধ করেও সুদেকারবারীর কুুুপ্রস্ততাবে পলাতক গৃহবধূ

বুধবার, ২১শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

বাঘায় টাকা পরিশোধ করেও সুদেকারবারীর কুুুপ্রস্ততাবে পলাতক গৃহবধূ

  • 54
    Shares

এম ইসলাম দিলদার,রাজশাহীঃ রাজশাহীর বাঘায় সুদে কারবারীর কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় বাড়ি ছাড়তে বাধ্য হয়েছে এক গৃহবধূ। গত মঙ্গলবার (২২ জুলাই) গভীর রাতে গৃহবধূর স্বামীর বাড়িতে গিয়ে ঘুম থেকে ডেকে সুদেকারবারী গৃহবধূ ও তার স্বামী এবং শশুর কে হুমকি দেয়। এতে গৃহবধূ ভয় পেয়ে তার স্বামীর বাড়ি ছাড়তে বাধ্য হয়। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার তেঁথুুুলিয়াা- হরিণা গ্রামের বিচ্ছাদ আলীর ছেলে মাজদার আলীর স্ত্রী আয়েশা বেগমে সাথে। ভুক্তভোগী আয়েশা বলেন,তিনি গত জানুয়ারি মাসে সাংসারিক আর্থিক বিশেষ প্রয়োজনে একই গ্রামের পারুল কসাই নামের এক সুদেকারবারীর কাছ থেকে ১৫ হাজার টাকা নেয়। ৮দিন পরে পারুল কসাই আয়েশার কাছে ২০হাজার টাকা দাবি করে। সংসারে অভাব থাকায় নিরুপায় হয়ে আয়েশা পাশের বাড়ির ডলি নামের এক মহিলা সুদ কারবারির কাছ থকে ২০হাজার টাকা এনে পারুলকে দেন। এদিকে ডলি তার কাছে ২২দিন পর ৩৫হাজার টাকা দাবি করে। ৩৫ হাজার টাকার জন্য আবার পারুলের কাছে যান। এ ভাবে দুই সুদ কারবারির যোগসাজশ্যে জমে উঠে রমরমা সুদ বানিজ্য। পারুলের কাছ থেকে এনে পরিশোধ করেন ডলির ৩৫ হাজার টাকা। পারুল দাবি করে ৫০হাজার টাকা। এভাবে পারুল কসাই ৭০ হাজার টাকা দিয়ে ১ লক্ষ টাকা দাবি করলে বিভিন্ন এনজিও সংস্থার কাছে ঋণ নিয়ে পরিশোধ করার পরও কৌশলে আরও ৪০ হাজার টাকা দাবি করে। এ টাকা দিতে না পারায়, টাকা পরিশোধ হবে মর্মে পারুল কসাই কু- প্রস্তাব দেয় আয়েশাকে। পারুলের কু-প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় ফড়িং ডাকাত কে সাথে নিয়ে রাত ১.৩০ মিঃ টাকার জন্য মোবাইল ফোনসহ বিভিন্ন ভাবে হেনেস্তা করেছে।এই অবৈধ সুদেকারবারী অত্যাচারে ছোট দুটি সন্তান নিয়ে পলাতক এই গৃহবধূ আয়েশা।

এই বিভাগের আরো খবর