counter নরসিংদীতে দিনদুপুরে দুই শতাধিক বাড়িঘরে ভাংচুর লুটপাট

রবিবার, ১২ই জুলাই, ২০২০ ইং, ২৮শে আষাঢ়, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

নরসিংদীতে দিনদুপুরে দুই শতাধিক বাড়িঘরে ভাংচুর লুটপাট

  • 279
    Shares
মোঃ সালাহউদ্দিন আহমেদঃ নরসিংদী জেলার মাধবদী থানাধীন পাইকারচর ইউনিয়ন এর পুরানচর গ্রামে একি ইউনিয়ন এর দক্ষিণচর গ্রামের দায়েনের নেতৃত্বে দিনেদুপুরে লুটপাটের ঘটনা ঘটেছে। সরেজমিনে গিয়ে এবং পুরানচর গ্রামের লোকজনের সাথে কথা বলে জানা যায় যে, গত কয়েকদিন আগে পুরানচর গ্রামের আমজাদ হোসেন -৩৮ পিতা মৃত মোহাম্মদ আলী প্রধান এর একটি দামী মোবাইল চুরি হয়ে গেলে তিনি লোক মারফত জানতে পারেন যে, তার মোবাইল পাঁচআনির সেলিম-৪০ পিতা বাতেন চুরি করে নিয়ে গেছে, এলাকার গণ্যমান্য লোকজন সহ সেলিমকে জিজ্ঞেস করলে সে মোবাইল চুরির বিষয়টি স্বীকার করে এবং জানায় যে সে মোবাইল দক্ষিণ চরের দুলাল এর কাছে রেখেছে।  বিষয়টি দক্ষিণ চরের লোকজনকে জানালে দক্ষিণ চরের সাবমিয়া, জজমিয়া, স্বপন ভান্ডারী, মাহবুব দায়িত্ব নিয়ে বলে যে আমরা পুরানচর বাজারে বসে এমদাদুল হক মেম্বারকে নিয়ে এর মিমাংসা করে দিবো।কথা হয় পুরানচর এর মেম্বার এমদাদুল হক এর সাথে তিনি বলেন ওরা বসার কথা বলে আমাকে সারাদিন কিছুই জানায়নি এবং মোবাইল উদ্ধারের ব্যপারেও কোনো পদক্ষেপও গ্রহণ করেনি।
উল্টো দক্ষিণ চরের লোকজন আমাদের পুরানচর বাজারে দায়েনের নেতৃত্বে দলাদলি করতেছে জানতে পেরে আমি বিষয়টি আমাদের পাইকারচর ইউনিয়ন এর চেয়ারম্যান হাশেম সাহেবকে জানালে তিনি বলেন আমি এই সামান্য মোবাইলের জন্য কোনো ঝামেলা হোক এটা চাইনা প্রয়োজনে আমি মোবাইল কিনেদিবো তবুও কেউ যেনো কোনো ঝামেলা না করে। সবকিছুই ঠিকঠাক ছিলো হঠাৎ করে দক্ষিণ চরের দায়েন এর নেতৃত্বে ২৫ জুন বৃহস্পতিবার বিকালবেলা কয়েক হাজার লোক ককটেল ফাটিয়ে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে পুরানচর গ্রামের ভিতরে ডুকে বাড়ি ঘরে অতর্কিত আক্রমণ করে বসে এবং দিনেদুপুরে লুটপাট করা শুরু করে। দক্ষিণ চরের মহিলারাও এই লুটপাটের ঘটনায় অংশনেয়। দায়েনের নেতৃত্বে পুরানচর গ্রামের প্রায় তিনশতাধিক বাড়িতে লুটপাট করে নিয়ে যা ঘরের আসবাবপত্র সহ টিভি/ ফ্রীজ /ফার্নিছার/ ফ্যান/ এইপিএস এর ব্যাটারী/ সিএনজি চালিত অটোরিক্সা/গরু-ছাগল/হাঁস-মুরগী-কবুতর/ পাওয়ারলুম এর মেশিনের তৈরী করা গ্রে কাপড়/ মহিলাদের স্বর্ণের জিনিস /লুটপাট কারীরা আল্লাহর ঘর মসজিদকেও ছাড়েনি ওরা মসজিদ এর গ্লাস ভেঙ্গে ভিতরে থাকা আইপিএস এর ব্যাটারীটাও নিয়ে গেছে। এমদাদুল হক মেম্বার এবং পুরানচর গ্রামের মানুষ আরো বলেন ওদের অস্ত্রশস্ত্র আগে থেকেই মওজুদ করা ছিলো দরিচরের মাসুদ পিতা জরিম এর পুরানচর এর কারখানায়। ওরা পুরানচর গ্রামের প্রত্যেকটি বাড়িতে হামলা চালিয়ে রামদা চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে তছনছ করে ফেলেছে।
দায়েন এবং তার বাহিনীর ভয়ে কেউই সামনে আসতে পারেনি ওরা যাকে পেয়েছে তাকেই এলোপাতাড়ি কুপিয়েছে তার প্রমাণ পুরানচর গ্রামের সুজন-২৮ পিতা সুরুজ মিয়া। সুজনকে ওরা সামনে পেয়ে কুপিয়ে মাথায় জখম সহ পায়ের রগ কেটে দিয়েছে বর্তমানে সে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে মৃত্যুর সংগে পাঞ্জা লড়তেছে। আগামীকাল সুজনের কাবিন হওয়ার কথা ছিলো কিন্তু এই মানুষরূপী জানোয়ারদের আঘাতের কারণে আজকে সে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়তেছে। কথা হয় পাইকারচর ইউনিয়ন এর চেয়ারম্যান পাইকারচর ইউনিয়ন আওয়ামিলীগ এর সভাপতি  হাশেম সাহেবের সাথে, তিনি বলেন আমি নিজে গিয়ে পুরানচর গ্রামের ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের সাথে দেখা করে এসেছি বিষয়টি আসলেই মর্মান্তিক যে বা যাঁরাই এমন অমানবিক ঘটনা ঘটিয়েছে তাদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি। এই বিষয়ে কথা হয় মাধবদী থানার ইন্সপেক্টর তদন্ত তানভীর আহমেদ এর সাথে তিনি বলেন আমরা বিষয়টি জানার সাথে সাথেই পুলিশ মোতায়েন করে এলাকার শান্তি-শৃঙ্খলা ফিরিয়ে এনেছি এবং পুরানচর এলাকায় এখনো পুলিশ মোতায়েন আছে। এলাকার অবস্থা এখন শান্ত আছে। তবে এই বিষয়ে এখনো কোনো মামলা হয়নি।

এই বিভাগের আরো খবর