counter তাড়াইলে জাতির পিতার সম্মান রক্ষার্থে সরকারি চাকুরিজীবীদের মতবিনিময় সভা

রবিবার, ১৬ই মে, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

তাড়াইলে জাতির পিতার সম্মান রক্ষার্থে সরকারি চাকুরিজীবীদের মতবিনিময় সভা

  • 1
    Share

মুকুট দাস মধু, কিশোরগঞ্জ : “জাতির পিতার সম্মান-রাখবো মোরা অম্লান” এই প্রতিপাদ্যকে সামনে রেখে কিশোরগঞ্জের তাড়াইলে সকল সরকারি চাকুরিজীবী কর্মচারীদের সমন্বয়ে স্বাস্থবিধি মেনে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

জানা গেছে,শনিবার(১২’ডিসেম্ভর) সকাল সাড়ে ১০ টায় উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে সারা দেশের ন্যায় কুষ্টিয়ায় জাতির পিতার ভাষ্কর্য দুর্বিত্বদের দ্বারা ক্ষতিগ্রস্থ্য ও অবমাননা হওয়ায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিরোধ গড়ে তোলার প্রত্যয়ে সকল সরকারি চাকুরিজীবী কর্মচারি ফোরামের উদ্যোগে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তারেক মাহমুদের সভাপতিত্বে ও উপজেলা যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা মো.আনিছুজ্জামান খান এর সঞ্চালনায় উক্ত মতবিনিময় সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,তাড়াইল থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো.মুজিবুর রহমান।উপস্থিত ছিলেন উপজেলার সকল স্তরের সরকারি কর্মকর্তা ও কর্মচারিবৃন্দ।

সভায় অন্যান্যদের মাঝে বক্তব্য প্রদান করেন,মুক্তিযোদ্ধা সরকারি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ ফারুখ আহম্মেদ,উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার একেএম গোলাম কিবরিয়া,উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা নুরে আলম,উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা.বদরুল হাসান।

থানা বারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো.মুজিবুর রহমান হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জ্ঞাপণ করে বলেন,বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে আমরা স্বাধীন দেশ পেতাম না।বঙ্গবন্ধুর ডাকে নিরস্র বাঙালি জাতি মহান মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়ে নয় মাস যুদ্ধ করে পাক হানাদারদের নিকট থেকে বিজয় ছিনিয়ে আনে।আমরা পেয়েছি একটা নিজস্ব মানচিত্র,নিজস্ব পতাকা।জাতির জনকের সম্মান রক্ষার্থে তাড়াইল থানা পুলিশ সদা তৎপর।যদি কোনও কুচক্রী মহল যদি জাতির পিতার অবমাননা করতে চায় তবে তা কঠোরভাবে প্রতিহত করতে তাড়াইল থানা পুলিশ সর্বদা প্রস্তুত আছে।

সভাপতির বক্তব্যে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তারেক মাহমুদ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের রুহের মাগফেরাত কামনা করেন।তিনি বলেন,বঙ্গবন্ধু-স্বাধীনতা-বাংলাদেশ একই সূত্রে গাঁথা।মহান মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহনকারী সকল মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি সম্মান জানিয়ে বলেন,আজ বাংলাদেশ উন্নয়নের সর্বোচ্চ শিখরে উদীয়মান।পাকিস্থানপন্থী কিছু দুর্বিত্বরা এখনও দেশকে অস্থিতিশীল করার পাঁয়তারা করছে।কিছুদিন পূর্বেও আমাদের জাতীয় সংগীত বিকৃতভাবে পরিবেশন করছে।তাঁদের এ দৃষ্টতা রুখতে হবে।জাতির পিতার প্রতি অবমাননা কিছুতেই মেনে নেয়া যায় না।

মতবিনিময় অনুষ্ঠানে স্কুল কলেজের সকল শিক্ষক শিক্ষিকাবৃন্ধ ছাড়াও উপজেলার সর্বস্থরের সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

এই বিভাগের আরো খবর