counter তাড়াইলে আওয়ামীলীগের শোক দিবস পালিত

মঙ্গলবার, ২৭শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই কার্তিক, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

তাড়াইলে আওয়ামীলীগের শোক দিবস পালিত

  • 550
    Shares

তাড়াইল(কিশোরগঞ্জ)প্রতিনিধি: কিশোরগঞ্জের তাড়াইলে উপজেলা আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতীয় শোক দিবস পালিত হয়েছে।

জানা গেছে,স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৫ তম শাহাদত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস পালন উপলক্ষে শনিবার (১৫ আগষ্ট) উপজেলা আওয়ামীলীগের পক্ষ থেকে আলোচনাসভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়।
উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে বিকাল ৩ টায় অনুষ্ঠিত উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পদক গিয়াস উদ্দিন লাকি’র পরিচালনায় উক্ত অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি ইসমাইল হোসেন।প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন,কিশোরগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মাদ আব্দুল আজিজ।অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য প্রদান করেন,তালজাঙ্গা ইউনিয়নের ২ জন সাবেক চেয়ারম্যান হারুন-অর-রশিদ,আশিকুর রহমান,ধলা ইউ’পির আ’লীগের সভাপতি সাইফুল ইসলাম ফকির তহুর,আ’লীগ নেতা জাহেদ ভূঁইয়া,আবুল কালাম ভূঁইয়া,উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা কবির মিয়া,জুটন মড়ল,মনির খাঁন,উপজেলা পেশাজিবী লীগের সভাপতি সারোয়ার হোসেন আজিজ প্রমূখ।
উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন লাকি তার বক্তব্যে বলেন,জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর জন্ম না হলে আমরা বাংলাদেশ নামক একটি স্বাধীন দেশ পেতাম না।বঙ্গবন্ধু শুধু বাংলাদেশেরই নন,সারা পৃথিবীর একজন অনন্য নেতা,একজন বরেণ্য নেতা,তার প্রতি সম্মান দেখানো,তাকে শ্রদ্ধা করা মানে আমরা নিজেরাই মহিমান্বিত হওয়া,আমরাই তাতে বড় হই।তাকে যতভাবে আমরা দেখবো,যত তার জীবন পর্যালোচনা করবো,তার রেখে যাওয়া স্মৃতি আমরা যত আলোচনা করবো,ততোই আমরা জানতে পারবো।তাকে জানা মানেই বাঙালি জাতিকে জানা,ইতিহাসকে জানা,বাঙালি জাতির ঐতিহ্যকে জানা।এগুলিই তিনি লালন করেছেন সারা জীবন,এগুলো নিয়েই তিনি কাজ করেছেন এবং এরই ফলে বাঙালি জাতির এই জন্মভূমি,স্বাধীন বাংলাদেশের সৃষ্টি।তিনি আরও বলেন,জাতির পিতার আত্মস্বীকৃত খুনিরা পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এদের দ্রুত দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করার আহবান জানান।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা আওয়ামীলীগের সাংগঠনিক সম্পদক আবদুল আজিজ(ভিপি আজিজ) বঙ্গবন্ধুর স্মৃতিচারন করে বর্তমান প্রজন্মদের প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন,বঙ্গবন্ধুর জীবন ও আদর্শ বারো করে জানুন।শুধুমাত্র বঙ্গবন্ধুকে জানলেই বাংলাদেশকে জানতে পারবে।প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনার সরকার দেশকে উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে রুপান্তরিত করেছেন।উন্নয়নের জোয়ার দেখে বিশ্বের ধনী রাষ্ট্রগুলি এখন বাংলাদের প্রশংসায় পঞ্চমুখ।

সভাপিতির বক্তব্যে ইসমাইল হোসেন আবেগ তাড়িত হয়ে কান্নাজড়িত কন্ঠে বলেন,জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান,তার সহধর্মিনী বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব,তার তিন ছেলে শেখ কামাল,শেখ জামাল,শেখ রাসেলসহ পরিবারের অধিকাংশ সদস্য ১৯৭৫ সনের ১৫ আগষ্ট কাল রাতে কতিপয় বিপথগামী সেনাসদস্যের বুলেটের নির্মম আঘাতে শহীদ হন।জাতির পিতার দুই কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা ও শেখ রেহেনা সে সময় বিদেশে থাকায় প্রাণে বেঁচে যান।

আলোচনাসভা শেষে ১৫ আগষ্টে শাহাদত বরনকারি বঙ্গবন্ধু ও তার পরিবারবর্গের আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করা হয়।এর আগে প্রত্যুষে উপজেলা আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে জাতীয় পতাকা ও কালো পতাকা উত্তোলন করা হয়।দুপুরে কাঙালীভোজে গরীব ও দুস্থ্যদের মাঝে উন্নত খাবার পরিবেশন করা হয়।
আলোচনা সভায় উপজেলা আওয়ামীলীগ, অংগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

 

এই বিভাগের আরো খবর